Tuesday, May 24, 2022

Exclusive, Pullela Gopichand: HS Prannoy-দের সাফল্যকে ১৯৮৩ বিশ্বকাপ ফাইনালে যাওয়ার সঙ্গে তুলনা করেলন কোচ গোপীচাঁদ

- Advertisement -spot_img
- Advertisement -spot_img


সব্যসাচী বাগচী

দীর্ঘ ৭৩ বছর পর অবশেষে খরা কাটল। প্রথম বার থমাস কাপের ফাইনালে (Thomas Cup) উঠেছে ভারত (India)। সৈয়দ মোদী (Syed Modi), প্রকাশ পাড়ুকোন (Prakash Padukone), পুল্লেলা গোপীচাঁদরা (Pullela Gopichand) কেরিয়ারের তুঙ্গে থাকার সময়েও যা করতে পারেননি সেটাই করে দেখিয়েছেন এইএচএস প্রণয় (HS Prannoy) ও সাত্যিক সাইরাজ রানকিরেড্ডি-চিরাগ শেট্টি (Satwiksairaj Rankireddy-Chirag Shetty) জুটি। আর সেই জয় এসেছে যন্ত্রণা ভুলে লড়াইয়ের মধ্যে দিয়ে। শেষ ম্যাচে সেটাই করে দেখিয়েছেন প্রণয়। আর তাই এ বারের থমাস কাপের ফাইনালে যাওয়াকে ‘কপিলস ডেভিলস’-এর লড়াইয়ের সঙ্গে তুলনা করলেন ভারতীয় দলের কোচ পুল্লেলা গোপীচাঁদ। তাঁর মতে অনেক প্রতিকুলতাকে ছাপিয়ে এ বার ফাইনালে জায়গা করে নেওয়া ১৯৮৩ সালের বিশ্বকাপের (1983 World Cup Final) ফাইনালে যাওয়ার সমান। হায়দরাবাদ থেকে জি ২৪ ঘণ্টাকে এমনটাই জানালেন তিনি।

১৪ বারের টমাস কাপ চ্যাম্পিয়ন ইন্দোনেশিয়ার বিরুদ্ধে রবিবার ফাইনাল খেলতে নামবেন প্রণয়রা। পর পর দু’টি ম্যাচে আন্ডারডগ হিসাবে জিতেছেন। হারানোর কিছু নেই তাঁদের। কিন্তু জেতার আছে অনেক। আছে ইতিহাস তৈরি করার সুযোগ। সেটা মনে করিয়ে দিয়ে পুল্লেলা বলছেন, “থমাস কাপের ফাইনালে খেলা তো অনেক দূরের কথা,  থমাস কাপে যোগ্যতা অর্জন করার কথা আমরা ভাবতেই পারতাম না। তবে এই ভারতীয় দলের মেজাজটাই একেবারে আলাদা। কঠিন প্রতিপক্ষ ও একাধিক প্রতিকুলতাকে ছাপিয়ে ভারতীয় দল নিজের যোগ্যতায় এ বার ফাইনালে চলে গেল। প্রণয়,সাত্যিকদের এই যাত্রা আমার কাছে অনেকটা ১৯৮৩ সালের বিশ্বকাপ ফাইনালে যাওয়ার মতো।” 

২০০১ সালে অল ইংল্যান্ড ব্যাডমিন্টন চ্যাম্পিয়নশিপ জিতেছিলেন গোপী। ভারতীয় ব্যাডমিন্টনে সেটাই এখনও পর্যন্ত বড় সাফল্য। এহেন প্রাক্তন তারকা ফের যোগ করলেন, “থমাস কাপ ব্যাডিমিন্টনে সবচেয়ে বড় ইভেন্ট। এমন প্রতিযোগিতার ফাইনালে যাওয়া মুখের কথা নয়। ১৯৮৩ সালের কপিল দেবের নেতৃত্বে ফাইনালে গিয়েই ক্ষান্ত থাকেনি। ওয়েস্ট ইন্ডিজকে হারিয়ে কাপও হাতে তুলেছিল। প্রণয়,সাত্যিকদেরও সেই কাজটা করতে হবে। তবে ক্রিকেটের মতো আমাদের ব্যাডমিন্টনেও নবজাগরণ ঘটবে।” 

বিশ্বের ১৩ নম্বর ব্যাডমিন্টন খেলোয়াড় জেমকের বিরুদ্ধে প্রণয় যখন খেলতে নামেন তখন সেমিফাইনালে ভারত ও ডেনমার্কের মধ্যে টাই ২-২ ব্যবধানে ছিল। নির্ণায়ক ম্যাচের শুরুটা ভাল হয়নি প্রণয়ের। ১৩-২১ ব্যবধানে হারেন প্রথম সেট। কিন্তু এর থেকেও যেটা ভারতের কাছে চিন্তার হয়ে দাঁড়ায় সেটা হল ব্যাঙ্ককের কোর্টে পা পিছলে প্রণয়ের পড়ে যাওয়া। এ বারের প্রতিযোগিতায় বেশ কয়েক জন শাটলার পিছলে গেলেন। কোর্ট নিয়ে অনেকে অভিযোগও করেছেন। প্রথম সেট চলাকালীন প্রণয় পড়ে যাওয়ার পরে সেখানে ছুটে যান চিকিৎসক। কিছু ক্ষণ তাঁর চিকিৎসা হয়। তার পরে ফের খেলতে ওঠেন প্রণয়। দেখে বোঝা যাচ্ছিল যন্ত্রণায় রয়েছেন তিনি। তাঁকে সতীর্থরা গ্যালারি থেকে তাতাচ্ছিলেন। প্রথম সেট হারলেও পরের দুই সেটে ফেরেন প্রণয়। প্রবল যন্ত্রণা উপেক্ষা করেই জেতেন তিনি। দ্বিতীয় সেটে (২১-৯) প্রতিপক্ষকে দাঁড়াতে দেননি প্রণয়। তৃতীয় সেটেও (২১-১২) সহজে জয় আসে।

ফাইনালে ইন্দোনেশিয়ার বিরুদ্ধে নামার আগে দলের সবচেয়ে ফর্মে থাকা শাটলারের চোট। সেটা নিয়ে চিন্তায় রয়েছে টিম ম্যানেজমেন্ট। এমনকি ব্যাঙ্ককের কোর্ট নিয়েও আপত্তি জানিয়েছে ভারতীয় শিবির। প্রণয়ের চোট নিয়ে চিন্তিত পুল্লেলা। তবে ব্যাঙ্ককের পিচ্ছিল কোর্ট নিয়ে বাড়তি ভাবনাচিন্তা করতে তিনি রাজি নন। 

তিনি যোগ করেন, “প্রণয়ের চোট নিয়ে চিন্তা থেকেই যাচ্ছে। তবে ফাইনালের মতো ম্যাচ ও কিছুতেই হাতছাড়া করবে না। আসলে এমন বড় ম্যাচ খেলার জন্য শরীরের থেকে মনের জোর বেশি দরকার। প্রণয়ের বড় মঞ্চের খেলোয়াড়। আমার ধারণা একটা দিন বিশ্রাম নিলেই ও সুস্থ হয়ে উঠবে।” 

তবে রবিবার কিন্তু কঠিন লড়াই হবে। ১৪ বারের থমাস কাপ চ্যাম্পিয়ন ইন্দোনেশিয়ার বিরুদ্ধে ফাইনাল খেলতে নামবে ভারত। ডেনমার্ককে হারিয়ে একই ভাবে জাতীয় পতাকা ওড়ানোর অপেক্ষায় রয়েছে ভারতীয় ব্যাডমিন্টন দল। সেই মুহূর্ত দেখার অপেক্ষায় রয়েছেন পুল্লেলা। 

আরও পড়ুন- HS Prannoy-এর দাপটে Thomas Cup-এর ফাইনালে ভারত

(Zee 24 Ghanta App দেশ, দুনিয়া, রাজ্য, কলকাতা, বিনোদন, খেলা, লাইফস্টাইল স্বাস্থ্য, প্রযুক্তির লেটেস্ট খবর পড়তে ডাউনলোড করুন Zee 24 Ghanta App)





Source link

- Advertisement -spot_img

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Latest news
- Advertisement -spot_img
Related news
- Advertisement -spot_img