Thursday, September 29, 2022

Pakistan New Army Chief: মেয়াদ শেষ বাজওয়ার, পরবর্তী সেনা প্রধান কে? লন্ডনে বৈঠকে পিএমএলএন

- Advertisement -spot_img
- Advertisement -spot_img


জি ২৪ ঘণ্টা ডিজিটাল ব্যুরো: প্রতিবেশী দেশ পাকিস্তানে কিছুদিন ধরে নতুন সেনাপ্রধান নিয়োগ নিয়ে আলোচনা জোরদার হয়েছে। বর্তমান সেনাপ্রধান কামার জাভেদ বাজওয়ার মেয়াদ শেষ হচ্ছে চলতি বছরের নভেম্বরে। এমন পরিস্থিতিতে পাকিস্তানের প্রতিরক্ষা মন্ত্রী খাজা আসিফ জানিয়েছেন যে প্রতিরক্ষা মন্ত্রক এবং জেনারেল হেডকোয়ার্টার্স (জিএইচকিউ) অক্টোবরের শেষে পরবর্তী সেনাপ্রধান (সিওএএস) নিয়োগের বিষয়ে আলোচনা করবে এবং শীঘ্রই একটি সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। সামা টিভির খবরে বলা হয়েছে, লন্ডনে নওয়াজ শরিফের বাসভবন থেকে আসিফের বক্তব্য এসেছে। যেখানে তিনি প্রধানমন্ত্রী শাহবাজ শরিফের সঙ্গে গিয়েছেন। প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ২৯ নভেম্বর সেনাপ্রধান জেনারেল কামার জাভেদ বাজওয়া অবসর নেওয়ার কারণে ক্ষমতাসীন পিএমএল-এন তাদের দলীয় বৈঠকে গুরুত্বপূর্ণ এই পদের নিয়োগ নিয়ে আলোচনা করতে পারে।

শোরগোল করছেন ইমরান

আসিফ বলেছেন যে পরবর্তী সেনাপ্রধানের (সিওএএস) নিয়োগ একটি রুটিন বিষয় এবং ইতিহাসে প্রথমবার ইমরান খান এই বিষয়টি নিয়ে শোরগোল সৃষ্টি করছেন। আসিফ বলেছেন যে ইমরান খান সাধারণ নির্বাচন পর্যন্ত নিয়োগ স্থগিত করার এবং জেনারেল বাজওয়ার মেয়াদ বৃদ্ধির প্রস্তাব দিয়েছেন। তিনি বলেন, নতুন নিয়োগের তারিখ দুই মাসের বেশি দূরে এবং শুধুমাত্র ইমরান খান নিয়োগ নিয়ে চিন্তিত এবং শোরগোল করছেন।

আরও জানানো হয়েছে যে, শাহবাজ শরীফ জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের অধিবেশনে যোগ দিতে নিউইয়র্কে যাওয়ার জন্য লন্ডনে পৌঁছেছেন। যেখানে ক্ষমতাসীন পিএমএল-এন পরবর্তী সেনাপ্রধান নিয়োগ সহ কিছু গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত করতে দলীয় বৈঠক করছে। নওয়াজ শরিফের নেতৃত্বাধীন পিএমএল-এন বৈঠকে নভেম্বরের গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত নিয়ে আলোচনা হবে এবং পঞ্জাবে অনাস্থা প্রস্তাব নিয়েও আলোচনা হবে বলে জানা গিয়েছে।

আরও পড়ুন: Pakistan-Russia Relations: এবার পাকিস্তানের পাশে রাশিয়া! নতুন বন্ধুত্বে ক্ষুব্ধ আমেরিকা?

‘ভারতকে খুশি হওয়ার সুযোগ দেব না

সম্প্রতি আসিফ ইমরান খানকে নতুন সেনাপ্রধান নিয়োগকে বিতর্কিত করার চেষ্টা বন্ধ করার জন্য সতর্ক করেছিলেন। তিনি বলেছিলেন, নিয়োগ নিয়ে বিতর্ক বাড়ালে ভারত উৎসাহিত হবে। সেনাপ্রধানের নিয়োগ স্থগিত করার জন্য খানের দাবির বিরুদ্ধে আসিফ বলেছিলেন যে তিনি দেশের সম্মানকে ঝুঁকিতে ফেলতে দেবেন না এবং ভারতকে খুশি হওয়ার সুযোগ দেবেন না।

কেন গুরুত্বপূর্ণ সেনা প্রধানের নিয়োগ

পাকিস্তানে সেনাপ্রধানের নিয়োগ একটি বড় বিষয় কারণ সেনাবাহিনী পর্দার আড়ালে থেকে অভ্যুত্থানপ্রবণ এই দেশকে শাসন করে। একটি গণতান্ত্রিক সরকার ইসলামাবাদে সর্বদা বসে থাকলেও, রাওয়ালপিন্ডিতে সেনাবাহিনীর সদর দফতরেই সব বড় সিদ্ধান্ত নেওয়া হয় এবং নির্দেশ দেওয়া হয়।

পাকিস্তানের বেশিরভাগ সরকারে একজন সেনাপ্রধান থাকার প্রবণতা থাকে যে কাজের নির্দেশ দেয়। বাজওয়াও এই কাজ করেছেন এবং বেশ কয়েকবার তিনি প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানকে হেয় করেছেন।

অন্যদিকে, পাকিস্তান তেহরিক-ই ইনসাফ (পিটিআই) প্রধান বাজওয়ার বিরুদ্ধে যাওয়ার চেষ্টা করেন, এবং তারপরেই শেহবাজ শরিফ এবং তার জোট সরকারকে ক্ষমতায় আনা হয়।

(Zee 24 Ghanta App দেশ, দুনিয়া, রাজ্য, কলকাতা, বিনোদন, খেলা, লাইফস্টাইল স্বাস্থ্য, প্রযুক্তির লেটেস্ট খবর পড়তে ডাউনলোড করুন Zee 24 Ghanta App) 





Source link

- Advertisement -spot_img

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Latest news
- Advertisement -spot_img
Related news
- Advertisement -spot_img