Monday, January 30, 2023

ফের ব্যাকফুটে মস্কো; আগুন ক্রিমিয়ার সংযোগকারী ব্রিজে, বন্ধ পরিবহণ

- Advertisement -spot_img
- Advertisement -spot_img


জি ২৪ ঘণ্টা ডিজিটাল ব্যুরো: ফের ব্যাকফুটে রাশিয়া। রুশপন্থী মিডিয়া শনিবার জানিয়েছে যে রাশিয়ার মূল ভুখন্ডের সঙ্গে এর নিয়ন্ত্রিনাধীন ক্রিমিয়া উপদ্বীপের সংযোগকারী একটি সেতুতে ব্যাপক আগুন ছড়িয়ে পরেছে। এর কয়েক ঘণ্টা আগেই পূর্ব ইউক্রেনের খারকিভ শহর শক্তিশালী বোমা বিস্ফোরণে কেঁপে ওঠে। রাশিয়ার জাতীয় সন্ত্রাসবিরোধী কমিটি বলেছে যে ট্রাক বোমাটি জ্বালানি বহনকারী সাতটি রেলে আগুন লাগিয়ে দেয়। এর ফলে ‘ব্রিজের দুটি অংশ আংশিকভাবে ধসে পড়েছিল’। যদিও কমিটির পক্ষ থেকে কাউকে দোষ দেওয়া হয়নি।

আরআইএ নভোস্তি এবং তাস বার্তা সংস্থা স্থানীয় রাশিয়ান কর্মকর্তা ওলেগ ক্রুচকভকে উদ্ধৃত করে জানিয়েছে যে একটি জ্বালানী স্টোরেজ ট্যাঙ্কের মতো কোনও বস্তুতে আগুন লেগেছে। এই ঘটনার পরে সেতুতে চলাচল বন্ধ করা হয়েছে বলে জানানো হয়েছে।

সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রকাশিত ঘটনার ছবিতে দেখা গিয়েছে সেতুতে একটি বিশাল অগ্নিকাণ্ড ঘটেছে। এর কারণে সেতুটির ব্যাপক ক্ষতি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। ঘটনার রিপোর্ট ও ছবি তাৎক্ষণিকভাবে যাচাই করা যায়নি।

অন্যদিকে, ইউক্রেনের প্রতিরক্ষা মন্ত্রক টুইট করে জানিয়েছে, ‘গাইডেড মিসাইল ক্রুজার মস্কভা এবং কের্চ ব্রিজ যা ক্রিমিয়ার ইউক্রেনীয় অংশে রাশিয়ান শক্তির দুটি কুখ্যাত প্রতীক, তা ভেঙে পড়েছে, পরবর্তীতে কী হবে।‘

২০১৪ সালে, রাশিয়া আন্তর্জাতিক আইন লঙ্ঘন করে ইউক্রেন থেকে ছিনিয়ে নিয়ে ক্রিমিয়াকে নিজের সঙ্গে সংযুক্ত করে। মস্কো ক্রিমিয়াকে রাশিয়ার সঙ্গে যুক্ত করার চার বছর পর ২০১৮ সালে সেতুটি চালু করা হয়।

সেতুটি রাশিয়ার পরিবহন নেটওয়ার্কের সঙ্গে এই উপদ্বীপকে সংযুক্ত করার জন্য ডিজাইন করা হয়। ১৯ কিলোমিটার অর্থাৎ ১১.৮ মাইল দীর্ঘ এই সেতুটি, কের্চ স্ট্রেট থেকে শুরু হয় এবং ক্রিমিয়াকে রাশিয়ার মূল ভূখণ্ডের সঙ্গে সংযুক্ত করে। এতে একটি রেলপথ এবং যান পরিবহন পথ রয়েছে। এটি ২০২০ সালে সম্পূর্ণরূপে চালু হয়।

আরও পড়ুন: ইউক্রেনের পরে এবার তাইওয়ান, চিনকে সমর্থন করে ফের বিতর্কে এলন মাস্ক

কিছু মিডিয়া রিপোর্ট অনুসারে, ক্রিমিয়া ব্রিজটি ইউক্রেনীয় বাহিনীর প্রধান লক্ষ্য কারণ এর মাধ্যমে রাশিয়ান বাহিনী রসদ পায়। 

খারকিভের মেয়র ইহোর তেরেখভ টেলিগ্রামে বলেছেন যে শহরে ভোরের বিস্ফোরণগুলি শহরের কেন্দ্রস্থলে ক্ষেপণাস্ত্র হামলার ফলাফল। তিনি বলেন, বিস্ফোরণের ফলে শহরের একটি চিকিৎসা প্রতিষ্ঠান এবং একটি বাড়িতে আগুন ছড়িয়ে পড়ে। যদিও হতাহতের কোনও খবর পাওয়া যায়নি।

পুতিন বুধবার অবৈধভাবে ইউক্রেনের চারটি অঞ্চলকে রাশিয়ার অংশ হিসাবে দাবি করার জন্য একটি নথিতে সই করেছেন। এর মধ্যে রয়েছে জাপোরিঝিয়া অঞ্চল। এখানেই রয়েছে ইউরোপের বৃহত্তম পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র।

(Zee 24 Ghanta App দেশ, দুনিয়া, রাজ্য, কল কাতা, বিনোদন, খেলা, লাইফস্টাইল স্বাস্থ্য, প্রযুক্তির লেটেস্ট খবর পড়তে ডাউনলোড করুন Zee 24 Ghanta App) 





Source link

- Advertisement -spot_img

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Latest news
- Advertisement -spot_img
Related news
- Advertisement -spot_img